২১ শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সকল

২১ শে ফেব্রুয়ারী আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সকল শহীদদের প্রতি বিনশ্র শ্রদ্ধা


দেশের গর্জন ফটো

গর্জন ডেস্কঃ অনলাইন নিউজ পোর্টাল দেশের গর্জন পত্রিকা পক্ষ থেকে সকল শহীদদের প্রতি বিনশ্র শ্রদ্ধা। আমি আমরা বাঙ্গালী আমাদের গর্ব। বাংলায় কথা বলি, বাংলা আমার ভাষা। ২১ শে ফেব্রুয়ারী, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। এই দিনটি শহীদ দিবস হিসেবেও চিহ্নিত হয়ে আছে। এই দিনে ১৯৫২ সালে, বাংলা ভাষা কে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেবার জন্য প্রাণ দিয়েছিল রফিক, সালাম, জব্বর সহ আরো অনেকে।

তাঁদের কে স্বরণ করে ওয়ার্ডব্রীজ স্কুল আয়োজন করেছিল রচনা প্রতিযোগিতা ও এক বর্নাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। ভাষার জন্য যাঁরা প্রাণ দিয়েছেন তাঁদের কে জানাচ্ছি ওয়ার্ডব্রীজ এর পক্ষ থেকে বিনম্র শ্রদ্ধা।

বাংলা ভাষার অবস্থান নিয়ে বাঙালির আত্ম-অম্বেষায় যে ভাষাচেতনার উন্মেষ ঘটে, তারই সূত্র ধরে বিভাগোত্তর পূর্ববঙ্গের রাজধানী ঢাকায় ১৯৪৭ সালের নভেম্বর-ডিসেম্বরে ভাষা-বিক্ষোভ শুরু হয়। ১৯৪৮ সালের মার্চে এ নিয়ে সীমিত পর্যায়ে আন্দোলন হয় এবং ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি তার চরম প্রকাশ ঘটে।

ওইদিন সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা ১৪৪ ধারা অমান্য করে রাজপথে বেরিয়ে এলে পুলিশ তাদের ওপর গুলি চালায়। এতে আবুল বরকত, আবদুল জব্বার, আবদুস সালামসহ কয়েকজন ছাত্রযুবা হতাহত হন। এ ঘটনার প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ ঢাকাবাসী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হোস্টেলে সমবেত হয়।

নানা নির্যাতন সত্ত্বেও ছাত্রদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ জানাতে পরের দিন ২২ ফেব্রুয়ারি পুনরায় রাজপথে নেমে আসে। তারা মেডিকেল কলেজ হোস্টেল প্রাঙ্গণে শহীদদের জন্য অনুষ্ঠিত গায়েবি জানাজায় অংশগ্রহণ করে।

ভাষাশহীদদের স্মৃতিকে অমর করে রাখার জন্য ২৩ ফেব্রুয়ারি এক রাতের মধ্যে মেডিকেল কলেজ হোস্টেল প্রাঙ্গণে গড়ে ওঠে একটি স্মৃতিস্তম্ভ, যা সরকার ২৬ ফেব্রুয়ারি গুঁড়িয়ে দেয়।

একুশে ফেব্রুয়ারির এই ঘটনার মধ্য দিয়ে ভাষা আন্দোলন আরও বেগবান হয়। ১৯৫৪ সালে প্রাদেশিক পরিষদ নির্বাচনে যুক্তফ্রন্ট জয়লাভ করলে ৯ মে অনুষ্ঠিত গণপরিষদের অধিবেশনে বাংলাকে পাকিস্তানের অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »