শিরোনামঃ
আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী হেলেনা আটক বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তি ববিতার আজ শুভ জন্মদি পদ্মবিলের ফুল ছিড়ে ফেসবুকে ভাইরাল যুবকরা পানিতে ডুবে গেছে মঠবাড়িয়ার নিম্নাঞ্চল নারী সেজে পুরুষের সঙ্গে যেভাবে প্রেম করেন ইমরান সোনারগাঁয়ের করোনা যোদ্ধারা প্রাণের ঝুঁকি নিয়েই ঝাঁপিয়েছেন মানবসেবায়  স্বামীকে হত্যা করে একই ঘরে প্রেমিককে নিয়ে রাতযাপন, প্রেমিক প্রেমিকা আটক নরসিংদীতে পাটের ভাল দাম হওয়ায় গাড়ী করে নিচ্ছেন নতুন পাট কৃষক বাড়ি থেকে জোর করে গরু নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব
স্বাধীনতার ৫০ বৎসর পরও থামছে না হিংসাত্মক

স্বাধীনতার ৫০ বৎসর পরও থামছে না হিংসাত্মক টেটাযুদ্ধ মূলত প্রধান কারণ রাজনীতি


ফটো-সাইফুল ইসলাম রুদ্র

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি: নরসিংদীর রায়পুরায় চরাঞ্চল সহ বিভিন্ন জায়গায় বর্তমানে বিভিন্ন রাজনৈতিক কুচক্রী মহল তাদের দুর্নীতি ও ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার জন্য প্রতিনিয়ত সাধারণ মানুষদের মধ্যে টেটাযুদ্ধ লাগিয়ে রাখছে। তেমনি চাঁনপুর এলাকার বাসিন্দা জালাল উদ্দিন, শাহিন মিয়া, কামাল সহ অধিকাংশ লোকজন সংবাদকর্মী রুদ্র এর নিকট অভিযোগ করে বলেন, আমাদের এলাকায় টেটাযুদ্ধ হলে আমাদেরকে অবশ্যই যেতে হয়।

কারণ কিছু অসাধু রাজনীতিবিদরা তাদের অবৈধ ক্ষমতা খাঁটিয়ে প্রতি ঘর থেকে টেটাযুদ্ধের জন্য চাঁদাবাবদ ২০ থেকে ৪০ টাকা উত্তোলন করা হচ্ছে। কেউ চাঁদা দিতে রাজি না হলে তাকে অবৈধ ক্ষমতার দাপটে একঘইরা করে দেওয়া হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা মারামারিতে যাচ্ছি। এদিকে বাঁশগাড়ী এলাকার বাসিন্দা রাহিমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, আমার স্বামী সহ অনেকে এই গন্ডগোলের হাত থেকে বাঁচার জন্য প্রবাসে চলে গিয়েছে। কিন্তু তাতেও রেহাই পাচ্ছে না আমার অসহায় পরিবার।

টাকা না দিলে তারা আমাদের গ্রাম ছাড়া করার হুমকি দেয়। তাই বাধ্য হয়ে আমরা টাকা দিই।

এই পর্যন্ত আমি আমার বিয়ের পর প্রায় শতাধিক মানুষের প্রাণ যেতে দেখেছি এবং প্রায় ২ হাজারেরও বেশি ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। চাঁনপুর এলাকার বাসিন্দা কালু মিয়া সংবাদকর্মী রুদ্রকে বলেন, আমি বর্তমানে সত্যের পথ বেছে নিয়েছি। কারণ বিগত সময়ে আমার চোখের সামনে অনেক মানুষ এই টেটাযুদ্ধে নিহত এবং আহত হয়েছেন।

অনেক পরিবার তাদের প্রিয়জনকে হারিয়ে এখন নিঃস্ব হওয়ার পথে। তাই আমি নিজ অর্থায়নে এমনই অসহায় পরিবারের অনেক মানুষকে বিয়ে সহ ব্যবসার ক্ষেত্রে সাহায্য করেছি। তাছাড়া আমি নিজে উদ্যোগ নিয়েছি ও গ্রামে গ্রামে উঠান বৈঠক করে সবাইকে সচেতন করছি যাতে করে এই ভয়ংকার হিংসাত্মক টেটাযুদ্ধে কেউ অংশগ্রহণ না করে।

এদিকে অপরাধ বিশেষজ্ঞরা মনে করেন যে, প্রতিহিংসা এবং কিছু অসাধু রাজনীতিবিদদের কারণে এই ভয়ংকর টেটাযুদ্ধগুলো হচ্ছে। রাজনীতিবিদরা ইচ্ছে করেলই এই টেটাযুদ্ধ থামিয়ে শান্তি ফিরিয়ে আনতে পারে।

দয়া করে নিউজটি লাইক করুন এবং শেয়ার করুন..
  •  
  •  
  •  
  •  
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »