শিরোনামঃ
অগ্নিবীণা ক্রীড়া ও যুব সংঘের পক্ষ থেকে আবু নাইম ইকবালকে ফুলেল শুভেচ্ছা এসআই আকবরকে পালাতে সহায়তা করায় এসআই হাসান বরখাস্ত হালদায় ৯ কেজি ওজনের আঘাতপ্রাপ্ত মৃত মা মাছ উদ্ধার গজারিয়ায় পাকা সেতুতে উঠতে বাঁশের সাঁকো ৬ বছরেও কাটেনি ভোগান্তি ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়ায় ২০ মিনিট ব্যাবধানে ৪ টি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত-২৪ নরসিংদীর ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশের নিরাপদ সড়ক শীর্ষক সচেতনতা কার্যক্রম নরসিংদীর মনোহরদীতে পুস্প সাহা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা  ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি করলো প্রশাসন শারদীয় দূর্গা উৎসব উপলক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দির সংস্কার ও দুঃস্থদের মাঝে চেক বিতরণ আ: লীগের সমালোচনায় জনমনে টিকে রয়েছে বিএনপি: মির্জা ফখরুল
সোনারগাঁয়ের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ত্রাণ গেল কই

সোনারগাঁয়ের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ত্রাণ গেল কই


ফয়সাল, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ  নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে আজ শুক্রবার পর্যন্ত সরকার সাড়ে ৫৬ টন চাল বরাদ্দ দিয়েছে বলে জানা যায়। সরকারের ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দকৃত এ চাল অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সোনারগাঁয়ের ইউএনও প্রতিটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের নামে বরাদ্দ দিয়ে ইউনিয়নে পৌঁছে দিয়েছেন। কিন্তু সরকারের এ ত্রানের বিষয়টি গোপন রেখে চেয়ারম্যান, মেম্বাররা নিজস্ব অর্থায়নে কর্মহীন অসহায় মানুষদের সাহায্য করছেন বলে মিডিয়ায় প্রচার করার অভিযোগ উঠেছে। এতে জনগণের কাছে সরকারের অনুদান ও প্রধানমন্ত্রীর মানবতাকে হেয় পূর্ণতা করা এবং সরকারের ভাবমূর্তিকে ক্ষুন্ন করা হচ্ছে বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা অভিমাত পোষন করেছেন। বিশেসজ্ঞরা জানান, জনপ্রতিনিধিদের উচিৎ সরকারের ত্রাণ সরকারের নামেই উপকারভোগীদের হাতে পৌছে দেয়া। সুত্র জানায়, ৫৬ টন চাল ৫ কেজি করে একজন দুস্থ মানুষের মধ্যে বিতরণ করলে পুরো উপজেলায় ১১,৩০০ জন মানুষের মধ্যে বিতরণ করা সম্ভব। গণমাধ্যম কর্মীর কাছে বিভিন্ন ইউনিয়নের মানুষ সাংবাদিকদের কাছে ফোন করে জানতে চাই সরকারের তহবিল ত্রান আসেনি সোনারগাঁয়ে ? প্রশ্নকারীদের যখন বলা হয় কেন এ প্রশ্ন করছেন? তখন অপর প্রান্ত থেকে বলা হয় ‘সোনারগাঁয়ের প্রতিটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রচার করছে যে তারা ব্যক্তিগত ফান্ড থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন। তিনি আরও লিখেন, ‘গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে কাঠগড়ায় দাড় করিয়ে যখন পাঠক বলেন, সরকারি বরাদ্দের কোনো খবর কোনো মিডিয়াতে আসল না কেন? এ প্রশ্নের জবাবে আমাদের উত্তর একটাই, এখন পর্যন্ত যে পরিমাণ সরকারি বরাদ্দ এসেছে তার পুরোটাই গোপন রাখা হয়েছে। শুধুমাত্র আত্মপ্রচারের জন্য কোনো চেয়ারম্যান গণমাধ্যমকর্মীদের বলেননি যে এগুলো সরকারি ত্রাণ! যে পরিমাণ অর্থের ত্রাণ দেওয়া হয়েছে তারচেয়ে বেশি অর্থ খরচ করা হয়েছে শুধুমাত্র প্রচারের কাজে। সরকারি কোনো ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করার সময় দুস্থরা ঠিকমত পেল কিনা এ জন্য একজন সরকারি কর্মকর্তাকে ইউনিয়ন পরিষদে তদারকি কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। কিন্তু বর্তমানে সরকারি ত্রাণ কে পেল আর এসব ত্রাণ কাদের মধ্যে বন্টন হচ্ছে তার জন্য কোনো তদারকি কর্মকর্তা নেই! বর্তমান দুর্যোগ সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকারি ত্রাণ আত্মসাৎ করার যে খবর বের হচ্ছে তা দেশে জাতি হিসেবে আমরা লজ্জিত, দু:খিত, মর্মাহত! সরকারি ত্রাণ নিজের ব্যক্তিগত বলে প্রচার চালিয়ে যারা সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে তারা কি জবাবদিহিতার বাইরে থাকবে। বিভিন্ন এলাকায় সরেজমিন ঘুরে লকডাউনে থাকা কর্মহীন মানুষের সাথে কথা বললে তারার জানান, সরকার লকডাউন ঘোষনা করেছে অথচ আমাদের হাড়িতে একমুঠো চালের ব্যবস্থা করেনি। তারা বলেন, সরকার নয় মেম্বার চেয়ারম্যানরা বলেছেন তাদের নিজের পকেটের টাকায় আমাদের জন্য সামান্য সহযোগিতা করেছে। এ ব্যাপারে সোনারগাঁয়ে নিম্নবিত্ত মানুষের সাথে কথা বললে তারা জানান, আমরা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ উপহার পেয়েছি। কিবাবে পেলেন জানতে চাইলে তারা জানান, সোনারগাঁয়ের টিএনও স্যার আমাদের হাতে ত্রাণ দিয়ে বলেছেন, এটা আপনাদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার। সুত্র: ডেইলি সোনারগাঁ

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »