শিরোনামঃ
বৌমার সন্তান না হওয়ায় নিজেই গর্ভবতী হলেন শাশুড়ি! যশোরের ঝিকরগাছায় মোটরসাইকেল দূর্ঘটনায় কলেজ ছাত্র নিহত অগ্নিবীণা ক্রীড়া ও যুব সংঘের পক্ষ থেকে আবু নাইম ইকবালকে ফুলেল শুভেচ্ছা এসআই আকবরকে পালাতে সহায়তা করায় এসআই হাসান বরখাস্ত হালদায় ৯ কেজি ওজনের আঘাতপ্রাপ্ত মৃত মা মাছ উদ্ধার গজারিয়ায় পাকা সেতুতে উঠতে বাঁশের সাঁকো ৬ বছরেও কাটেনি ভোগান্তি ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কের গজারিয়ায় ২০ মিনিট ব্যাবধানে ৪ টি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত-২৪ নরসিংদীর ইটাখোলা হাইওয়ে পুলিশের নিরাপদ সড়ক শীর্ষক সচেতনতা কার্যক্রম নরসিংদীর মনোহরদীতে পুস্প সাহা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা  ঠাকুরগাঁওয়ে মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি করলো প্রশাসন
সোনারগাঁওয়ে দলিল লেখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির

সোনারগাঁওয়ে দলিল লেখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির নির্বাচনে খলিল-শহিদ প্যানেল এগিয়ে দাবি নেতাকর্মীদের 


দেশের গর্জন ফটো

গর্জন ডেস্কঃ আসন্ন বৈদ্যেরবাজার সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির নির্বাচনে হাজী মোঃ খলিলুর রহমান ও হাজী মোহাম্মদ শহীদ সরকার প্যানেল ইসহাক-মোস্তফা কামাল শাহিদ প্যানেল থেকে এগিয়ে রয়েছে। জানা গেছে, সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের নির্বাচনে মূলত সকল দলিল লিখকদের বিভিন্ন কাজে যারা বেশি সহযোগিতা করেতে পারবেন বলে মনে করা হয়, তাদেরকেই ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত করা হয়। ইতিপূর্বে বৈদ্যের বাজার সাব রেজিষ্ট্রে অফিসের দলিল লিখকদের নেতা নির্বাচিত করা ঘু কন্ঠ ভোটের মাধ্যমে। জ্যেষ্ঠ দলিল লিখক আবুল কাশেম সরকার গত হওয়ার পর থেকেই মূলত নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন শুরু হয়। এরআগে, যতদিন আবুল কাশেম সরকার বেঁচে ছিলেন ততদিন হাজী মোঃ খলিলুর রহমানকে নেতা নির্বাচন করে খলিলুর রহমান ও আবুল কাশেম সরকার সকল সদস্যদের ঐক্যবদ্ধ করে সুষ্ঠুভাবে সকল দলিল লিখকদের সকলের সহযোগিতায় সকল সমস্যা করে আসছিলেন। দীর্ঘ প্রায় ৩০ বছর হাজী খলিলুর রহমানকে সিলেকশনে সভাপতি করে মৌখিক কমিটির মাধ্যমে দলিল লিখকদের সকল কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন হতো। ২০১৪ সালের ১৯ জানুয়ারী আবুল কাসেম সরকারের মৃত্যুর পর ২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো ২ বছরের জন্য ভোটের মাধ্যমে দলিল লিখকদের নেতা নির্বাচিত হয়। সে নির্বাচনে হাজী মোঃ খলিলুর রহমান ও হাজী জসিম চৌধুরী প্যানেলের ১৫ জন সদস্য সকলেই নিজ নিজ পদে নির্বাচিত হয়। পরে ২০১৭ সালে লেজুলেশনের মাধ্যমে ১ বছর বাড়িয়ে তিন বছরের জন্য নির্বাচন হয়। সে নির্বাচনে শাহ মোঃ ইসহাক ও হাজী মোঃ শহিদ সরকার প্যানেল কিছু ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হয়। যদিও সে নির্বাচনে প্রচুর টাকা দিয়ে ভোট কেনা-বেচার আলগা (উড়ো) কথা বিভিন্নভাবে প্রচার হয়েছিল। এ বছর সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে ২০২০ সালের বৈদ্যেরবাজার সাব রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখক ও স্ট্যাম্প ভেন্ডার সমিতির নির্বাচন। নির্বাচনকে ঘিরে প্রায় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। এবারের নির্বাচনে সাব রেজিষ্ট্রারকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নিযুক্ত করা হয়েছে। হাজী কামরুল ইসলামকে প্রধান উপদেষ্টা করে ৯ সদস্যের একটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। ইতোমধ্যে, নির্বাচন পরিচালনা কমিটি নির্বাচনের সকল কাজ প্রায় সম্পন্ন করেছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। এদিকে, নির্বাচনকে ঘিরে বেশ জমে উঠেছে সাব রেজিষ্ট্রি অফিস। অফিসের আঁনাচে-কাঁনাচে সর্বত্রই নির্বাচনের গুঞ্জন। সবচেয়ে বেশি আলোচনায় এসেছে বিগত নির্বাচনে ইসহাক-শহীদ প্যানেল ভেঙ্গে প্রবীণ দলিল লিখক হাজী মোঃ খলিলুর রহমানের সাথে হাজী শহিদের প্যানেল গঠন নিয়ে। শহীদের দলছুট হওয়ার পেছনে কারণ হিসেবে ভোটাররা দেখছেন বিগত দিনে কতিপয় ব্যক্তির (বিগত প্যানেলের) অর্থ লোপাট ও সঠিক হিসাব দিতে না পারা, সদস্যদের কাজে অসহযোগিতা এবং কাজ করতে গিয়ে ব্যর্থতার পরিচয় দেয়া, পদের বা ক্ষমতার অপব্যবহারসহ আরো বেশ কিছু দিক। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র জানায়, বৈদ্যের বাজার সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে মোট ভোটার ১৬৮টি। এরমধ্যে দুজন বিদেশ অবস্থান করছেন। বাকী ১৬৬টি ভোটের মধ্যে ১০৫ থেকে ১১৫ ভোটের ব্যবধানে এখন পর্যন্ত (রোববার রাত) এগিয়ে রয়েছে ছাতা প্রতীকের খলিল ও পাখি প্রতীক পাওয়া শহিদ প্যানেল। এ প্যানেলের অন্যান্য সদস্যরা হলো, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে উড়োজাহাজ প্রতীকের হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরি, রুই মাছ প্রতীক পাওয়া সহ-সভাপতি পদে মোহাম্মদ সরকার। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন (আম প্রতীক), কোষাধ্যক্ষ পদে মোহাম্মদ নূরে আলম সরকার (তালা প্রতীক), সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মনির হোসেন ভূঁইয়া (কাপ-পিরিচ প্রতীক), প্রচার সম্পাদক পদে মোঃ ইয়াসিন কবির ইয়াসিন (সিলিং ফ্যান প্রতীক ), দপ্তর সম্পাদক পদে আব্দুল বাতেন (কম্পিউটার প্রতীক ), ক্রীড়া সম্পাদক পদে মোহাম্মদ আলী ভূঁইয়া (মোটরসাইকেল প্রতীক ), সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে কবির হোসেন মোল্লা (তবলা প্রতীক), ধর্ম সম্পাদক পদে মাসুদ উর রহমান ভূঁইয়া (টুপি প্রতীক)। এছাড়া, সদস্য হিসেবে গোলপ ফুল প্রতীকে মোস্তাক আহমেদ, কামাল হোসেন বাল্ব প্রতীকে এবং গাজী মোঃ কামাল গ্লাস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। অপরদিকে, আবু ইসহাক ও মোস্তফা কামাল শাহিন প্যানেলের সভাপতি পদে শাহ মোহাম্মদ ইসহাক (চেয়ার প্রতীক) সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে এইচ এম এ আউয়াল ভূঁইয়া (সিংহ প্রতীক) সহ-সভাপতি মোঃ নাজমুল হক (হাতি প্রতীক), সাধারণ সম্পাদক পদে মোঃ মোস্তফা কামাল শাহীন (দোয়াত-কলম প্রতীক), সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে কামরুল হাসান (কলস প্রতীক), আবু সিদ্দিক (দেয়াল ঘড়ি প্রতীক), সাংগঠনিক সম্পাদক পদে তোফাজ্জল হোসেন (মোরগ প্রতীক), প্রচার সম্পাদক পদে আরমান বাদশা (মোবাইল প্রতীক), দপ্তর সম্পাদক পদে শামসুজ্জামান (টেবিল প্রতীক), ক্রীড়া সম্পাদক পদে মতিউর রহমান ভূঁইয়া (ফুটবল প্রতীক), সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে সাইফুল ইসলাম (একতারা প্রতীক), ধর্ম সম্পাদক পদে নুরনবী ভূঁইয়া পাঞ্জাবি প্রতীক নিয়েস লড়ছেন। এছাড়া, ঘড়ি প্রতিকে সদস্য পদে রফিকুল ইসলাম, টেবিল ফ্যান প্রতীকে মোহাম্মদ হানিফ কবির এবং কামাল হোসে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »