শিরোনামঃ
বন্দরে এতিমখানায় শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্বল বিতরণ করলেন ডিসি স্বামীর অধিকার বঞ্চিত হয়ে নববধুর আত্মহত্যা নরসিংদীর আড়িয়াল খাঁ নদে সেতু না থাকায় দুই উপজেলার লাখো মানুষের দুর্ভোগ শ্রীবরদী পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ১-কাউন্সিলর পদে ১-জন বাতিল জন্ম নিবন্ধন সনদ নিতে আসা তরুণীকে ইউপি কার্যালয়ের ভেতরে ধর্ষণ ট্রাফিক সার্জেন্টকে বেদম পেটাল মোটরসাইকেলচালক ভাসানচরের সুযোগ-সুবিধা ও নিরাপত্তা দেখে ভবিষ্যতে রোহিঙ্গারা আসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বৃষ্টি হবে, শীত বাড়বে, বিদায় নেবে আগামী মাসে শার্শায় অবৈধ ক্লিনিক মালিকে ১লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত নরসিংদীর পাঁচদোনায় সড়ক দুর্ঘটনায় এক মোটরসাইকেল চালক নিহত
সাটুরিয়ায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে

সাটুরিয়ায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ


ফটো-প্রতীক

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি: মা‌নিকগ‌ঞ্জের সাটু‌রিয়া উপ‌জেলায় চাহিদা মোতাবেক যৌতুক না পেয়ে স্ত্রী মনি ওরফে মিতুকে হত্যার দায়ে একরামুল হক রবিন নামের এক ব্যক্তির ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন মানিকগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল।

গত বুধবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে মানিকগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আলী হোসাইন এই রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি একরামুল হক রবিন জেলার সাটুরিয়া উপজেলার গোলড়া এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক বিয়ের কিছুদিন পরই স্ত্রী মনি ওরফে মিতুর পরিবারের নিকট যৌতুক দাবি করলে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা রবিনকে দেন মিতুর পরিবারের লোকজন।

ফের মিতুর পরিবারের নিকট সাড়ে ৪ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে রবিন। পরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে ২০০৮ সালের ১৭ জুলাই রাতে মিতুকে শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে হত্যা করে পালিয়ে যায় রবিন। এর পর দিন অর্থ্যাৎ ১৮ জুলাই এ ঘটনায় সাটুরিয়া থানায় মামলা দায়ের করে মিতুর পরিবার। উক্ত মামলায় রবিন ও রবিনের বাবা রফিকুল ইসলামকে আসামি করা হয়।

এরপর মোট ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত আসামি একরামুল হক রবিনের বিরুদ্ধে মুত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন এবং রবিনের বাবা রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »