মুজিব শতবর্ষে ভিক্ষুক বিধবা মালেখা পেলেন না

মুজিব শতবর্ষে ভিক্ষুক বিধবা মালেখা পেলেন না প্রধানমন্ত্রীর উপহার


ফটো-তপু রায়হান রাব্বি

তপু রায়হান রাব্বি, ফুলপুর (ময়মনসিং) প্রতিনিধিঃ প্রশাসন সহ অনেকেই আশ্বাস দিলেও মুজিব শতবর্ষে অনেকেই বঙ্গবন্ধুর কন্যা দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার “স্বপ্নের নীড়” ঘর পেলেও ঘর মিললোনা অসহায় হতদরিদ্র ভিক্ষুক বিধবা বৃদ্ধ মালেখার ভাগ্যে এমনই নানান কথার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে মানুষের মুখে মুখে।

ফুলপুরের ৭নং রহিমগঞ্জ ইউনিয়নের ধন্তা(কুলোরকান্দা) গ্রামের ভিক্ষুক বিধবা বৃদ্ধ মালেখা খাতুন (৬৩) স্বামীর রেখে যাওয়া স্মৃতি আড়াই সতাংশ জায়গা থাকলেও নেই থাকার মত একটি ঘর। ১টি মেয়ে রেখে সড়ক দূর্ঘটনায় প্রায় ১২ বছর আগে মারা জান স্বামী। সে থেকেই নেমে আসে তার কপালে কালবৈশাখীর ঝড়।

এনিয়ে ২০১৮ সনের জুলাইয়ের শেষ দিখ থেকে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট পত্রিকায় লিখালেখির পর সাবেক উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব সাইফুল ইসলামের বরাবরও লিখিত আবেদন করলেও কোনো লাভ হয়নি। তার পর বর্তমান কর্মরত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শীতেষ চন্দ্র সরকার মহোদয় নব যোগদান করার কিছুদিন পরে উনার সাথে কথা বলে আবারও লিখিত আবেদন করা হয় এবং তিনিও আশ্বাস দেন খুব দ্রুত উনার জন্য ব্যবস্থা করা হবে বলে।

কিন্তু আজও বেঁচে থাকার তাগিদে এবাড়ি ওবাড়ি হাত পেতে ভিক্ষা করে কিছু মতন বেঁচে আছে।

কিন্তু পারছেনা পলিথিন ক্রয় করে ঘরটি মেরামত করতে। এবার হয়তো ঝড়-বাদল আসার আগেই মাটির সাথে মিশে যাবে তার থাকার ঘরটি। মালেখা খাতুন অনেক দুঃখে কষ্টে চোখে পানি নিয়ে জানান, স্বপ্ন দেখাতেই শিখিয়েছে আনেকেই প্রধানমন্ত্রীর উপহার দিবে বলে। আমার ভাগ্যে নেই প্রধানমন্ত্রীর উপহার তাহলে বাকি জীবন কাটাবো কি করে। কথায় আছে আমার টাকা নেই বলে কেউ পাশে নাই ?যাইহোক এই বৃদ্ধকালে বৃষ্টিতে ভিজে স্বামীর ভাঙ্গা ঘরে থেকেই মরতে পারবো শুধু আপনারা একটু দোয়া করবেন।

আর পয়ারী গ্রামের ছোট্র ছেলে তপু রায়হান রাব্বি উনার চেষ্টায় ১০টাকা কেজি একটি কার্ড পেয়েছিলাম।

সে আমার জন্যও অনেক কিছুই করেছেন দোয়া করি তার জন্য। স্থানীয়রা জানান, হায়রে দুনিয়া, উনি যদি প্রধানমন্ত্রীর কোন কিছু না পাই। তাহলে কে পাবে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর। শুনেছি ইউএনও স্যার সহ অনেকে বারবার আশ্বাস দিয়েছেন উনাকে ঘর দেবে বলে। কিন্তু কেন পাচ্ছে না তা বলতে পাচ্ছিনা।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে জনগনের অভিযোগ আজ মালেখা খাতুনের হাতে টাকা নেই বলে কি? সে সরকারের দেওয়া কিছু পাচ্ছে না! উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের বিনীতভাবে অনুরোধ জানানো হল দু’চোখে সরজমিনে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মালেখা খাতুনের একটি ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। উনি আর কত যোদ্ধ করবেন জীবনের সাথে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »