মহেশপুরে ফতেপুর ইউনিয়নের ৬টি গ্রামে ১২ মাস

মহেশপুরে ফতেপুর ইউনিয়নের ৬টি গ্রামে ১২ মাস রাত ভর পাহারা


ফটো- এম এ হালিম

মহেশপুর প্রতিনিধি: মহেশপুর উপজেলার ২নং ফতেপুর ইউনিয়নের ৬টি গ্রাম ফতেপুর, কৃষ্ণচন্দ্রপুর, রাখালভোগা, চাঁদপুর,সাড়াতলা ও পুরন্দপুর,এ ৬ গ্রামের সবশ্রণী পেশার মানুষের ১২ মাস রাতভর পাহারা দেওয়া লাগে।এ ৬ টি গ্রামে পুলিশি অভিযোগ মতে চুরি ডাকাতি বেশি হয় তাই নিজেদের জান- মালের সুরক্ষার্থে এ গ্রামের মানুষের পালাক্রমে রাতভর পাহারা দেওয়া লাগে।উল্লেখ্য যে ভৌগলিক দিক দিয়ে ফতেপুর ইউনিয়নের এ ৬ টি গ্রাম পাশ্ববর্তি চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার পাশে অবস্থিত। তাই ভৌগলিক কারনেও অনেকটা ঝুকিতে থাকতে হয় এই ইউনিয়নের কিছু গ্রামের মানুষকে।তাছাড়া এ ইউনিয়নের মধ্যে হাইওয়ে রোডের ২ টি স্থান বাক্রাখাল ও জোড়ামাইল নামক স্থানে প্রায়ই রোড ডাকাতি হয়।তাছাড়া গত নভেম্বর হতে এ পর্যন্ত সাড়াতলা গ্রামে ডাকাতি করে মৃত মানুষের পিঠের নিচের থেকে টাকা নেওয়া চাঁদপুর গ্রামের আবুল কালাম আজাদ ( ভোলা) সরদারের বাড়ি ২ বার ডাকাতি ও অসংখ্য বাড়িতে গরু,আলমসাধু ভ্যান ইজিবাক চুরি উল্লেখযোগ্য ।এ ক্ষেএে চোর বা ডাকাত ধরা পড়ার কোন রেকড বা তৎপরতা মহেশপুর থানা পুলিশের তেমন উল্লেখ করা মত নেই।গত বছর ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান পি পি এম এ এলাকায় আইন শৃঙ্খলা উন্নতির জন্য ২ সপ্তাহের জন্য অস্থায়ী ভাবে পুলিশ ক্যাম্প করলে কিছুদিন এ এলাকার মানুষ স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে।তাই এ ৬ টি গ্রামের মানুষ স্বাভাবিক জীবনযাপনের জন্য পুলিশ সুপার সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আবেদন জানিয়েছে যে এলাকার গুরুত্ববিবেচনায় স্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করে আইন শৃঙ্খলার উন্নতি মাধমে এ ৬ টি গ্রামের সাধারন খেটে খাওয়া মানুষের রাত পাহারা দেওয়া নামক অভিশাপ থেকে মুক্তি দেওয়া হোক।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »