শিরোনামঃ
সাংবাদিক গোলাম সরওয়ারকে উদ্ধারে সিইউজে’র ১৬ ঘণ্টার আল্টিমেটাম শেরপুরে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের ৪৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত  স্বাধীনতা পুরস্কার পাওয়ায় মন্ত্রী গাজীকে সংবর্ধনা দিলেন রূপগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন শ্রীবরদীতে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলা করেছে হোটেল শ্রমিক বাঘারপাড়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে-উপলক্ষে আলোচনা সভা ও র‌্যালির আয়োজন মেয়েকে ধর্ষণ মায়ের মামলায় ধর্ষক পিতা কারাগারে সিংড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে সুজন নামে এক খামারির মৃত্যু পালকিতে চড়ে বউ আনলেন কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রানা শার্শার গাতিপাড়া খেয়া ঘাট ব্রীজটি মরণ ফাঁদ মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র কমিউনিটি পুলিশ সর্বত্র এই প্রতিপাদ্যে জামালপুরে কমিউনিটি পুলিশ সমাবেশ অনুষ্ঠিত
ব্রাহ্মণবাডিয়ায় ধর্ষণবিরোধী কর্মসূচিতে পুলিশের সাথে বিএনপির কর্মীদের

ব্রাহ্মণবাডিয়ায় ধর্ষণবিরোধী কর্মসূচিতে পুলিশের সাথে বিএনপির কর্মীদের ধস্তাধস্তি


ফটো-লোকমান হেসেন পলা

লোকমান হেসেন পলা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া: সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপির প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বাধা দিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোমিনুল হকসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে জেলা বিএনপি নেতারা। যদিও, পুলিশ ধস্তাধস্তির বিষয়টি অস্বীকার করেছে। খবর নিয়ে জানা যায়, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ ভবনের সামনে প্রতিবাদ সভা করার জন্য অবস্থান নেয় জেলা বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মীরা। তারা ব্যানার নিয়ে রাস্তায় দাঁড়ানোর সাথে সাথে সদর মডেল থানা পুলিশের দ্বিতীয় কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ বাধা দেয়। এসময় ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে পুলিশ। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় বিএনপি;নেতাকর্মীদের। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ সভা করার জন্য দাঁড়িয়েছিলাম। হঠাৎ করে পুলিশ এসে মারমুখী হয়ে আমাদের ওপর আক্রমণ করে। তবুও আমাদের নেতাকর্মীরা উত্তেজিত হয়নি। এ ঘটনায় আমিসহ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়েছি। এসময় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুর রহিম বলেন, কেউ আহত হয়নি, কোনো ধস্তাধস্তির ঘটনাও ঘটেনি। তারা বের হতে চেয়েছিল, আমরা বের হতে দেইনি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »