বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না-কিশোরীর

বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না-কিশোরীর


ফটো-জাহাঙ্গীর রেজা

ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: সে তখন এস.এস.সি পরীক্ষার্থী প্রাপ্ত বয়স না হওয়ায় বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না কিশোরীর। গত দূর্গা পূজায় কোন এক জায়গায় দেখা সে থেকে প্রেমের সম্পর্ক কিশোর-কিশোরীর। সেই প্রেমের টানে শারমিন (ছদ্দ নাম) প্রেমিক শামীমের বাড়ি গিয়ে উঠলেও বয়সের কাছে হেরে যায় শারমিন। যার ফলে বিয়ের পিঁড়িতে বসা হলো না আর শারমিনের। তার বাড়ি নীলফামারী ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলী গ্রামে। সে ঐ গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা দুলাল হোসেনের মেয়ে। বিষয়টি নিয়ে গ্রামে হৈ চৈ পড়লে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের উপস্থিতিতে গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে উভয়কে তাদের নিজ নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। সেই শালিসের প্রায় ৮ হতে ৯ মাস পরে গত ২ অক্টবর শারমিন গিয়ে উঠে একই উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নের বাবুল হোসেনের ছেলে প্রেমিক শামীমের বাড়িতে। আসে পাশের প্রতিবেশিরা জানায়, ছেলে বাড়িতে না থাকায় পরিবারের লোকজন মেয়েটিকে বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করতে দেয়নি। মেয়েটির সারারাত কাটে উঠানের ডাইরি ঘরে। অতপর, প্রতিবেশীর এক বাড়িতে দুদিন যাবত অবস্থান করে মেয়েটি। মেয়েটি সেখানে প্রতিবেশিদের সামনে বলে আমি তাকে ভালোবেসেছি বিয়ে করতে হলে তাকেই করব। অতপর ছেলের বাবা অনাধিকার বাড়িতে প্রবেশের মামলা দায়ের করলে শারমিনকে নিয়ে আসা হয় থানায়। ডিমলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সিরাজুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েটিকে ওখান থেকে নিয়ে এসে নীলফামারী কোটে প্রেরণ করা হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »