শিরোনামঃ
ডাক ভাইরাস হেপাটাইসিসে’ মারা গেল ৫০০০ হাঁস স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত ৪ ফেব্রুয়ারির পর: শিক্ষামন্ত্রী নরসিংদী জেলা প্রশাসক গোল্ডকাপ ফুটবল রূপগঞ্জে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে ৩ শতাধিক কম্বল বিতরণ স্বাস্থ্য কর্মীর শোক সভায় চোখের জলে সবাইকে কাঁদিয়ে শোক প্রকাশ করলেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ পলাশ সোনারগাঁয়ে কন্যাকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবার গায়ে ফুটন্ত পানি দিয়ে ঝলসে দিল বখাটেরা জীবননগরে প্রধান শিক্ষকের হাত থেকে বিদ্যালয় বাঁচতে মানববন্ধন উত্তেজনা বাড়িয়ে ফের তাইওয়ানের আকাশে চীনের ১২টি যুদ্ধবিমান আশা করি চট্টগ্রামের নির্বাচন ভালো হবে: সিইসি প্রধানমন্ত্রীকে সবার আগে টিকা নিতে বললেন মির্জা: ফখরুল
বন্যার পানিতে আবারও ভেসে গেল কোটি টাকার

বন্যার পানিতে আবারও ভেসে গেল কোটি টাকার পাকা রাস্তা


ফটো-ফিরোজ সুলতান

ফিরোজ সুলতান, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে ঠাকুরগাঁওয়ের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত সহ জেলার প্রায় সব কটি উপজেলাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বন্যার পানিতে। ভারী বর্ষণে সৃষ্ট এ বন্যার পানি ভাসিয়ে নিয়ে গেছে জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার জাউনিয়া-সাবাজপুর গ্রামের চলাচলের একমাত্র পাকা রাস্তাটি। কোটি টাকা ব্যায়ে ছয় মাস আগে নির্মিত  ১.৫ কিলোমিটার রাস্তার প্রায় সিংহ ভাগই ভেঙ্গে ভেসে গেছে বন্যার পানিতে। রাস্তার বিভিন্ন অংশে সৃষ্টি হয়েছে বড় ধরনের গর্তের। সামনে দাঁড়ালে পানি ছাড়া প্রমান মিলবেনা কোন পাকা রাস্তার। আর অনাকাঙ্খিতভাবে এ রাস্তাটি ভেঙ্গে পড়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে জাউনিয়া ও সাবাজপুরসহ কয়েকটি গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ। এর আগেও বন্যার পানিতে একবার ভেসে যায় এ রাস্তাটি বলে জানান স্থানীয়রা। অভিযোগের সুরে তারা আরো জানান, মাটি ভরাট করে উঁচু না করে রাস্তা নির্মাণ ও নিম্নমানের পাকাকরণ কাজের জন্য দ্বিতীয় বারের মত সাবাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পার্শের রাস্তাটি পানিতে ভেসে গেছে। এতে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে মূল শহরের সাথে আমাদের কয়েকটি গ্রামের।
সাবাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ জানান, রাস্তাটি পাকাকরণ করার এক বছরও হয়নি। অতিবৃষ্টির ফলে প্রায় সিংহভাগ রাস্তা ভেসে গেছে পানিতে। রাস্তাটি সংস্কারের জন্য স্থানীয় প্রকৌশলীকে বলা হয়েছে। দ্রæত সংস্কার না করা গেলে বিদ্যালয়ে যাতায়াতসহ স্থানীয়দের চরম ভোগান্তি পোহাতে হবে। এবিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মাইনুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আর বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় মাটি হলো বেলে মাটি। একটু চাপ দিলেই ভেঙে যায়। বৃষ্টি কমলে পানিটা কিছুটা নেমে গেলেই আমরা রাস্তা মেরামতের কাজে হাত দিবো।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »