শিরোনামঃ
ভারতের দিল্লিতে নিযুক্ত হাই-কমিশানের প্রতিনিধি দলের বেনাপোল বন্দর পরিদর্শন নরসিংদীর শিবপুরে উপজেলা দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ইতিহাসে এই প্রথম নারীদের নেতৃত্বে দূর্গাপূজার আয়োজন যশোরে নরসিংদীর রায়পুরায় ছাত্রলীগ সভাপতির বিরদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ,ভিকটিম উদ্ধার স্বাধীনতার ৫০ বছরেও তালিকায় ঠাঁই মেলেনি মণিরামপুরের ৫ শহীদ মুক্তিযোদ্ধার ৫ ভাইয়ের সঙ্গে তরুণীর সংসার রাজাপুর থেকে চুরি হওয়া ২টি গরু বরিশাল থেকে উদ্ধার চোর চক্রের সর্দার আটক ছাতকে নৌ-পথের ছিনতাইকারী ইদন মিয়া গ্রেফতার টানা বর্ষণে বিপর্যস্ত বরগুনাসহ উপকূল ঠাকুরগাঁওয়ে রশিক রায় জিউ মন্দিরে ১৪৪ ধারা জারি
পরিবেশগত শিক্ষাই টেকসই উন্নয়ন বাড়ে

পরিবেশগত শিক্ষাই টেকসই উন্নয়ন বাড়ে


নিজস্ব প্রতিবেদক, জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) পরিবেশগত শিক্ষাই টেকসই উন্নয়ন বাড়ে’  শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার (২৬ জুলাই) সকালসাড়ে দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটোরিয়ার শিক্ষক লাউঞ্জে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালাটি মূলত শিক্ষা, পরিবেশ, টেশসইউন্নয়ন,জলবায়ু পরিবর্তন ইত্যাদি বিষয়ের উপর অনুষ্ঠিত হয়।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি (কর্মশালা অধিবেশন) হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট অর্থনীতিবীদ ড.কাজীখালেকুজ্জান আহম্মেদ এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট পদার্থ বিজ্ঞানী প্রফেসর ড.আব্দুল্লাহ আল মামুন,রিচার্স ফর অ্যাডভান্সমেন্ট অফ কমপ্লিটএ্যাডুকেশনের সভাপতি প্রফেসর ড.মো: শরিফ উদ্দীনসহ বেশকয়েকজন শিক্ষক ও গবেষক। কর্মশালায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় দুই শতাধিকশিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. কাজী খালেকুজ্জান আহম্মেদ,‘অর্থনৈতিক, সামাজিক এবং পরিবেশগত উন্নয়নই হচ্ছে টেশসই উন্নয়ন। শিক্ষারমাধ্যমে সচেতনা সৃষ্টি করে টেশসই উন্নয়ন সম্ভব। সব উন্নয়ন মূলত মানুষের জন্যই। তাই সকল পেশাজীবী মানুষদের সমান সম্মান দিতে হবে।জলবায়ু পরিবর্তনে টেশসই উন্নয়নের অবস্থা খারাপ হচ্ছে। দিনদিন গ্রিনহাউস গ্যাসের নিঃসরণ বাড়ছে। এতে পরিবেশের তাপমাত্রা বৃদ্ধিসহ নানাপ্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিয়েছে। সম্পদের সঠিক ব্যবহার,ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সম্পদ সঞ্চয়ের প্রতি  আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে । নিজ অবস্থান থেকে জলবায়ুর ভারসাম্য রক্ষা করতে সকলকে সচেতন হতে হবে। বিশিষ্ট পদার্থ বিজ্ঞানী প্রফেসর ড.আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন,‘শিক্ষার মূল হল প্রাথমিক শিক্ষা। কারণ প্রাথমিক শিক্ষার উপর ভিত্তি করেই পরিবর্তীতে স্কুল কলেজ পার হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হই।তাই আমাদের উচিত প্রাইমারি  ও হাইস্কুলের শিক্ষকদের সমান মূল্যায়ন করা।’এছাড়াওতিনি পরীক্ষার ফলাফল সামাজিক ব্যাধি হিসেবে উল্লেখ করে বলেন,‘বর্তমানে পরীক্ষার ফলাফলকে সামাজিক মূল্যায়নের মাপকাঠি হিসেবে ধরাহয় যা মোটেও ঠিক নয়। খারাপ রেজাল্ট করা ছাত্ররাও পরবর্তীতে অনেক ভাল কিছু করতে পারে। সমাপনী বক্তৃতায় প্রফেসর ড. মো: শরিফ উদ্দীন বলেন,‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিষয়ে পড়াশোনা করি।তারপরেও আমাদের  পরিবেশ,সমাজ, রাষ্ট্রের এবং মানুষের জন্য কাজ করতে হবে তাহলেই আমাদের দেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এবং আমাদেরও পড়ালেখারপ্রকৃত উদ্দেশ্য হাসিল হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »