নিপাকে নানা অজুহাতে গরম খুন্তির ছ্যাকা দেয়া

নিপাকে নানা অজুহাতে গরম খুন্তির ছ্যাকা দেয়া হতো


ফটো-সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্কঃ বরিশালের এক শিশু গৃহকর্মীকে ঢাকায় অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে এক চিকিৎসকের স্ত্রীর বিরুদ্ধে। ওই শিশুকে চিকিৎসা দেয়ার ব্যবস্থা না করে বরিশালের গ্রামের বাড়ির কাছে ফেলে রাখা হয়ে। পরে তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে পুলিশ। এ ঘটনার বিচার দাবি করেছেন স্বজনরা। এ ব্যাপারে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথাও জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে নিপা বাড়ৈ (১১) নামে এই শিশুকে বরিশালের উজিরপুর থানা পুলিশ উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। উজিরপুর থানার ওসি মো. জিয়াউল আহসান জানান, শিশুটিকে তার গ্রামের বাড়ি উজিরপুরের জামবাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এর আগে বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নিপাকে বাসু নামে জনৈক ব্যক্তি সেখানে ফেলে যায়।

নিপা ও তার স্বজনরা জানায়, নিপা গত ৬ মাস ধরে ঢাকার জাতীয় পঙ্গু হাসপাতালের অর্থপেডিক্স ও ট্রমা বিশেষজ্ঞ ডা. সিএইএস রবিনের শ্যামলীর বাসায় গৃহপরিচারিকা কাজ করে আসছিল। কাজ শুরুর কয়েক দিনের মাথায় নিপার উপর নানা অজুহাতে নির্যাতন করে ডা. রবিনের স্ত্রী রাখি দাস। প্রায়ই তার উপর চালানো হতো নির্যাতন। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে গরম খুন্তির ছ্যাকা এবং আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এই ধারাবাহিকতায় তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে নিপাকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা থেকে বরিশালের উজিরপুরের নিজ বাড়ির কাছে একটি দোকানের সামনে ফেলে রাখা হয়।

উজিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. শামসুদ্দোহা তৌহিদ বলেন, শিশু নিপার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত ও ছ্যাকার চিহ্ন রয়েছে। তবে সে মানসিকভাবে বেশী আঘাত পেয়েছে।  উজিরপুর থানার ওসি মো. জিয়াউল আহসান জানান, শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ঢাকায়। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেবে সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »