শিরোনামঃ
ঠাকুরগাঁওয়ে অসময়ে মাচায় তরমুজ চাষে সফল কৃষক: বাবু  দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর আহমেদ হোসেন আর নেই ফুলপুরে মাস্ক না পড়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা সোনারগাঁওয়ে পৌরসভার মেয়র প্রার্থী ঝরার নির্বাচনী প্রচারনা ও লিফলেট বিতরণ গণমাধ্যমকর্মীরা করোনাকালের নির্ভীক যোদ্ধা: তথ্যমন্ত্রী মূর্তি ও ভাস্কর্যের বিরোধ সৃষ্টি ষড়যন্ত্রের অংশ: এম এ আউয়াল মঙ্গলবার থেকে বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিতরণ শুরু বাইডেন ২৪ নভেম্বর নতুন মন্ত্রী পরিষদের নাম ঘোষণা করবেন পুরনো রোলেই পরের শ্রেণিতে উঠবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা নাইজেরিয়ায় মসজিদে গুলিতে নিহত ৫, ইমামসহ ৪০ জনকে অপহরণ
নামফলক ভেঙ্গেছে দুষ্কৃতকারীরা এমপি খোকার সম্পৃক্ততা নেই:

নামফলক ভেঙ্গেছে দুষ্কৃতকারীরা এমপি খোকার সম্পৃক্ততা নেই: সোনারগাঁ জাতীয়পার্টি


ফটো-সংগৃহীত

গর্জন ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জ-৩(সোনারগাঁ) আসনের জাতীয়পার্টির সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে ঘিরে একটি নামফলক ভাঙ্গার ইস্যু নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের যে অপচেষ্টা চলছে সেই বিষয়ে বিবৃতি দিয়েছে সোনারগাঁও উপজেলা জাতীয়পার্টি। গতকাল ১৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা জাতীয়পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম ইকবাল এই বিবৃতি দেন। বিবৃতিতে তিনি পুরো বিষয়টি পরিস্কার করেন।

বিবৃতিতে আবু নাঈম ইকবাল বলেন, গত ১৮ নভেম্বর বহুল প্রচারিত দৈনিক পত্রিকায়, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘উন্নয়ন কাজের নাম নিয়ে এমপি খোকা ও চেয়ারম্যান আনোয়ারের দ্বন্দ্ব, প্রকল্প বন্ধের শঙ্কা’ শিরোনামের খবর সহ উক্ত বিষয়ে বিভিন্ন শিরোনামের খবরে যে বক্তব্য প্রকাশিত ও প্রচারিত হয়েছে- তা সম্পূর্ণ বানোয়াট ও কল্পনাপ্রসুত। প্রকাশিত ওই বক্তব্যের মধ্যে সামান্যতম সত্যতাও নেই।

সোনারগাঁও জি.আর ইনস্টিটিউশন স্কুল এন্ড কলেজের অভিভাবকদের মাঝে করোনাকালে শিক্ষার্থীদের বেতন নিয়ে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়। ওই বিষয়ে অভিভাবকদের সঙ্গে বৈঠক করতে ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ সুলতান মিয়া, কাউন্সিলর জাহেদা আক্তার মনি, কাউন্সিলর দুলাল মিয়া, বিদ্যালয় গভর্ণিং বডির সদস্য মোহাম্মদ আলী, সোনারগাঁ পৌর জাতীয় পার্টির সভাপতি এম.এ জামান, শিক্ষানুরাগী আলেয়া আক্তারসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে এমপি খোকা শিক্ষার্থীদের বেতন নিয়ে অসন্তোষ সৃষ্টির বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে তিনি বলেন- আমি চাই এ অসন্তোষ দূর করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় থাকুক। সরকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন পরিশোধ করেছেন। তারপরেও যদি কোন বেতনে অর্থের প্রয়োজন হয়, সেটা আমি দেখবো। তিনি বিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেন এবং সমাধানের প্রতিশ্রুতি দেন। বৈঠক শেষে এমপি খোকা নেতৃবৃন্দেরকে নিয়ে বিদ্যালয় ত্যাগ করেন।

পরবর্তীতে জানা যায়- অজ্ঞাত কোন দুষ্কৃতকারী বিদ্যালয়ের গেইটে লাগানো নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নামে লাগানো নামফলকটি ভেঙ্গে ফেলে, যার সঙ্গে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার সামান্যতমও সম্পৃক্ততা নাই। আমরা এমন ঘৃণ্য ও ন্যাক্কারজনক কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

বিবৃতিতে আরো জানানো হয়, সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার উপানুষ্ঠানিক পত্রের আলোকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষেদের অর্থায়নে সোনারগাঁ উপজেলায় ইতিপূর্বেও বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়ন হয়েছে এবং সকল স্থানেই নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের নামের ফলক ব্যবহার করা হয়েছে। উক্ত বিষয়ে সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা কখনও বিরুপ মন্তব্য করেননি। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার কোন দ্বন্দ্ব নেই।

সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা নামফলকে নিজের নাম দেখানোর জন্য রাজনীতি করেন না। করোনাকালীন সময়ে যখন অনেকেই দু’একদিন অসহায় মানুষকে কয়েক প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে ঘরের কোনে লুকিয়ে পড়েছিলেন, তখনও এমপি খোকা মাসের পর মাস সোনারগাঁয়ের অসহায় মানুষের দুয়ারে দুয়ারে হাজির হয়েছিলেন, নিজের সাধ্যানুসারে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন।

তিনি দখলবাজ, মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করে আসছেন। তিনি সোনারগাঁয়ের উন্নয়নে বিশ্বাসী। পরিকল্পিতভাবে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের সম্মান ক্ষুন্ন করতে এবং রাজনৈতিকভাবে সংসদ সদস্যের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে উদ্দেশ্যেপ্রনোদিতভাবে স্থানীয় একটি চক্র ঈর্ষান্বিত হয়ে তাঁর বিরুদ্ধে অপপ্রচার করে বেড়াচ্ছে।

অশুভ উদ্দেশ্যে এমন ঘৃণিত ঘটনা ঘটিয়ে ষড়যন্ত্রকারীরা লিয়াকত হোসেন খোকার সম্মানের সাথে সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের সম্মানেও ব্যাপকভাবে আঘাত হেনে অপরাজনীতির সুবিধা অর্জন করতে চাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে এমপি খোকা প্রতিহিংসা ও হানাহানীর রাজনীতির পরিবর্তে রাজনৈতিক সহাবস্থান নিশ্চিত করার মাধ্যমে উন্নয়নের আলোয় উদ্ভাসিত শান্তিময় সোনারগাঁ উপজেলা গড়তে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার নামে মিথ্যা, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিমূলক খবর প্রকাশ করা হলেও তার উন্নয়ন কর্মকান্ডের কোন বিবরণ খবরে উল্লেখ নেই। অথচ উদ্দেশ্যেপ্রনোদিতভাবে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকা, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাম পরিচয়হীন সূত্রের উদৃতিতে সম্পূর্ণ অসত্য ও বানোয়াট বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে। এমতাবস্থায় “সোনারগাঁ উপজেলা জাতীয় পার্টি” উল্লেখিত খবরে প্রকাশিত ও প্রচারিত তথ্য এবং বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

অতএব বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার স্বার্থে উল্লেখিত খবরে যে বানোয়াট ও অসত্য বক্তব্য প্রকাশ করা হয়েছে তা- প্রত্যাহার পূর্বক আমাদের প্রতিবাদ যথাযোগ্য গুরুত্বের সাথে প্রকাশ করার অনুরোধ জানাচ্ছি। সুত্র: sunnarayanganj24.com

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »