শিরোনামঃ
সোনারগাঁয়ে পানি নিস্কাশনের যায়গায় ময়লার ভাগার, দেখার কেউ নেই ছাতকে উত্যেক্তকারিদের হামলায় নারী আহত: থানায় অভিযোগ শিবপুর উপজেলার বি.বি.এস ইটভাটার কাজকর্ম চালানো হচ্ছে শিশু শ্রমিক সোনারগাঁয়ে হেলথ এসিস্ট্যান্ট এসোসিয়েশনের চার দফা কর্মবিরতি পালন রিষাবাড়ীতে নদীতে ঝাপিয়ে পড়া ৩ জুয়াড়ির লাশ উদ্ধার, দায়িত্ব অবহেলায় ২ পুলিশ প্রত্যাহার, আটক ২ ঢাকা থেকে পায়রাবন্দর পর্যন্ত রেললাইন নিয়ে যাব: প্রধানমন্ত্রী প্রাইভেট ও সরকারি হাসপাতাল মিলেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামলানো হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শাসন দীর্ঘায়িত করার ইচ্ছা সরকারের নেই: কাদের দেশরক্ষার জন্য নদীরক্ষা অপরিহার্য: তথ্যমন্ত্রী নরসিংদীতে আশিরনগর সিএনজি স্ট্যান্ডে স্টিকার ব্যবহার করে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ
নরসিংদীতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ করে বাচ্চার কোন

নরসিংদীতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ করে বাচ্চার কোন স্বীকৃতি দিচ্ছে না ধর্ষণকারী


ফটো-সাইফুল ইসলাম রুদ্র

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর বেলাব উপজেলার হারিসাঙ্গাল এলাকার মানসিক প্রতিবন্ধী এক দরিদ্র নারী আছিয়া (২০) কে ধর্ষণ করেছে একই এলাকার বাসিন্দা আবু তালেব। গত কয়েকবৎসর পূর্বে এই এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে ওই নারী গর্ভবতী হয়েছেন। অপরদিকে এই ঘটনা চারদিকে জানাজানি হলে, ধর্ষক আবু তালেক বাচ্চা নষ্ট করার জন্য অনেক চেষ্টা করেছে। কিন্তু এলাকাবাসীর জোরদার কঠোর নিরাপত্তার কারণে ধর্ষক আবু তালেব বাচ্চা করতে নষ্ট ব্যর্থ হয়। তাছাড়া উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে এলাকায় বিশাল এক সালিশ দরবার হয়। উক্ত শালিসী দরবারে ধর্ষক আবু তালেব ও তার পরিবার প্রতিবন্ধী অসহায় আছিয়াকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রæতি দেয়। কিন্তু প্রতিবন্ধী আছিয়া এতে রাজি হয় নাই। পরবর্তীতে আছিয়া নরসিংদী জজ কোর্টে হাজির হয়ে ধর্ষক আবু তালেবের নামে একটি মামলা দায়ের করে। মামলা করার পর আদালত আবু তালেবের সাথে প্রতিবন্ধী আছিয়ার ৫ লক্ষ টাকা কাবিননামা মূলে বিবাহ দিয়ে দেয়। এতে খুব সহজেই ধর্ষক আবু তালেব জামিন পেয়ে যায়। পরবর্তীতে ধর্ষক আবু তালেব জামিন পাওয়ার পর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে নিয়ে প্রতিবন্ধী আছিয়ার বাড়িতে একটি সালিশ বসে। উক্ত সালিশে জোর করে ৩ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ধর্ষক আবু তালেব আছিয়ার কাছ থেকে আপোষনামা নেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু এতে আছিয়া রাজি না হয়ে দরবার হতে চলে যায়। অপরদিকে মামলা না উঠানোর কারণে ধর্ষক আবু তালেব ও তার সঙ্গী বাহিনীরা দিন দিন প্রতিবন্ধী আছিয়ার উপর অমানসিক নির্যাতন চালাচ্ছে। এমনকি আছিয়ার বাড়ীর চারদিকে তারা বেড়া দিয়ে আছিয়াকে ঘর থেকে বের হতে দিচ্ছে না। এ খবর শুনে সংবাদ কর্মী রুদ্র আছিয়ার বাড়িতে গেলে এলাকার লোকজন জড়ো হতে থাকে। এক পর্যায়ে ধর্ষক আবু তালেব সহ তার সঙ্গীরা বলেন আমাদের ক্ষমতা আছে বলেই আমরা চেয়ারম্যানের নির্দেশনা অনুযায়ী আছিয়ার বাড়ীতে বেড়া দিয়েছি। মামলা না উঠালে প্রয়োজনে আছিয়াকে বাড়ী থেকে উঠতে বাধ্য করব। এ বিষয়ে বেলাব উপজেলার নির্বাহী অফিসারকে অবগত করলে তিনি সাথে সাথে ইউপি চেয়ারম্যানকে এ বিষয়টি অবগত করে। পরে চেয়ারম্যানের নির্দেশ মোতাবেক ধর্ষক আবু তালেক ও তার সঙ্গীরা দুই পায়ে চলার জন্য একটু রাস্তা ফাঁকা করে দেয়। অসহায় ধর্ষিতা এবং প্রতিবন্ধী আছিয়া বর্তমানে ধর্ষক আবু তালেবর যেন সঠিক বিচার হয় এই কারণে সরকারের সহযোগিতা কামনা করছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »