শিরোনামঃ
ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্য সহকারীদের কর্মবিরতিতে টিকা কার্যক্রম ব্যাহত নরসিংদীতে শিবপুরে গ্রাম্য কবিরাজের গলাকাটা লাশ উদ্ধার ব্রাহ্মণবাড়িয়া কলাগাছের গোড়ায় পাওয়া শিশুটির মা শিক্ষিকা পারভীন নরসিংদীতে স্বাস্থ্য সহকারীদের অব্যাহত কর্মবিরতির কারণে টিকা না পেয়ে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে শিশুরা নরসিংদীতে আশিরনগরের সিএসজি স্ট্যান্ডে চাঁদাবাজির সত্যতা কিছুটা স্বীকার করলেন নেতারা বিএনপি ক্ষমতায় যেতে চোরাগলি খুঁজছে: কাদের প্রতিবন্ধীদের আলাদাভাবে যত্ন নিবেন: ইকরামুল হক টিটু বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য শুধু প্রতিকৃতি নয় বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দেশের মানুষকে হতাশ করেছে: জিএম কাদের ফের করোনার নিয়ন্ত্রণ হারাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, মৃত্যুতে রেকর্ড
নরসিংদীতে টি.আই এর অনুমোদন নিয়ে চলছে হাইওয়েতে

নরসিংদীতে টি.আই এর অনুমোদন নিয়ে চলছে হাইওয়েতে চাঁদাবাজি বাণিজ্য


ফটো-সাইফুল ইসলাম রুদ্র

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী: নরসিংদীতে পাঁচদোনা মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের টি.আই মনিরের মৌখিক নির্দেশ মোতাবেক দীর্ঘ দিন যাবৎ সহিদ নামে এক প্রতারক মহাসড়কে করে আসছে চাঁদাবাজি। শুধু তাই নয় এই সহিদ নামে প্রতারক বিভিন্ন মহাসড়কের পাশে ফলের দোকানগুলো থেকে ফল নিয়ে টাকা না দেওয়ারও তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে পাঁচদোনা মোড়ের এক ফল ব্যবসায়ী আইনুল মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আমার দোকান থেকে সহিদ বিভিন্ন সময় ফল নিয়ে টি.আই মনিরকে দেয় কিন্তু ফলের দাম অনুযায়ী টাকা দেয় না। টাকা চাইলে এখান থেকে উচ্ছেদ করার হুমকি দেয়।

ভুয়া পুলিশ পরিচয়কারী সহিদের এই চাঁদাবাজিতে অতিষ্ঠ পরিবহন মালিক ও চালকরা। প্রতিবাদ করলেই নেমে আসছে নির্যাতনের ঝড়। টি.আই মনিরের কাছে তারা একরকম জিম্মি হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বের মধ্যে রয়েছে গতি নিয়ন্ত্রণ, শৃঙ্খলা আনয়ন, প্রতিবন্ধকতা মোকাবিলা করা, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নিষিদ্ধ এমন সব যানবাহনের চলাচল প্রতিরোধ করা।

কিন্তু যেসব কাজ তাদের জন্য নির্ধারিত, তা না করে তারা অন্য কাজ করতেই পছন্দ করে বলে অভিযোগ রয়েছে। ট্রাফিক পুলিশের শৃঙ্খলা ফেরাতে পুলিশ সদর দফতর থেকে একাধিকবার তাগিদ দেওয়া হলেও তাদের চাঁদাবাজিতে সুশৃঙ্খল পরিবেশ ফিরে আসছে না বলে জানান পাঁচদোনা এলাকার বিভিন্ন পরিবহন চালকরা।

সহিদ এবং টি.আই মনিরের কর্মকান্ড নিয়ে যাত্রী, পরিবহন মালিক, শ্রমিকদের অভিযোগের অন্ত নেই। পরিবহন-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ট্রাফিক পুলিশ প্রায় প্রতিটি পয়েন্টে গাড়ি থামিয়ে কাগজপত্র চেকের নামে চাঁদা নেয়। কাগজপত্র সঠিক না পেলে তারা খুশি হয়। কোনো না কোনো অজুহাতে পুলিশ টাকা আদায় করেই ছাড়ে। টাকা আদায়ে ব্যর্থ হলে দীর্ঘ সময় আটকে রাখার পর দেওয়া হয় মামলা।

এদিকে এই পাঁচদোনা মোড়ে অধিকাংশ ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন যানবাহন চালকরা এই টি.আই মনির ও সহিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে অনেক কিছু বলেছে যা সংবাদ কর্মী রুদ্র কালেকশন করেছে। এই বিষয়ে গরম খবর আগামী সংখ্যায় বেরিয়ে আসছে।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এই সমস্ত চাঁদাবাজ এবং অসৎ কিছু পুলিশ কর্মকর্তাদের কারণে পুরো পুলিশ বাহিনীর বদনাম হচ্ছে। এই জেলায় অনেক সৎ ট্রাফিক পুলিশ কর্মকর্তা রয়েছে। কিন্তু অসৎ কিছু পুলিশ কর্মকর্তাদের কারণে তাদেরও বদনাম হচ্ছে। তাই এখনি এই সমস্ত অসৎ পুলিশ কর্মকর্তা এবং চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2020 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »