নরসিংদীতে আরও ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত, মোট

নরসিংদীতে আরও ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত, মোট আক্রান্ত ২৫১১, সুস্থ ৯৫ শতাংশ


ফটো-সাইফুল ইসলাম রদ্র

সাইফুল ইসলাম রদ্র, নরসিংদী প্রতিনিধিঃ নরসিংদীতে গত ২৪ ঘণ্টায় তিনজন পুরাতন কোভিড রোগীসহ মোট ১৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এ নিয়ে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়াল দুই হাজার ৫১১ জন। এছাড়া করোনামুক্ত হয়েছেন মোট দুই হাজার ৩৮২ জন। এ পর্যন্ত সুস্থতার হার প্রায় ৯৫ শতাংশ। মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন নরসিংদীর সিভিল সার্জন ডা. মো. নূরল ইসলাম।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, গত ৭ এপ্রিল জেলার পলাশ উপজেলায় প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হন। এরপরের ২১৫ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ৫০০ ছাড়ায়। আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১ হাজার ছাড়াতে সময় লেগেছিল ৬৬ দিন।

পরবর্তী ১ হাজার জন আক্রান্ত হতে লাগে ৭৬ দিন। সর্বশেষ ৫১১ ব্যক্তি আক্রান্ত হতে লাগল ৭৪ দিন। সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৮ নভেম্বর ৬৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রাজধানীর মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথে (আইপিএইচ) পাঠানো হয়।

সোমবার রাতে হাতে পাওয়া এসব নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে তিনজন পুরাতন করোনা রোগীসহ মোট ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলার ১২ জন ও রায়পুরা উপজেলার একজন রয়েছেন। এ নিয়ে পুরো জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাড়িয়েছে দুই হাজার ৫১১ জনে।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, এ পর্যন্ত জেলার ছয়টি উপজেলা থেকে মোট ১৩ হাজার ৮২৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১ হাজার ৪৫১ জন, শিবপুরে ২৬৫ জন, পলাশে ২৯২ জন, মনোহরদীতে ১৭৯ জন, বেলাবতে ১৪৯ জন ও রায়পুরায় ১৭৫ জন রয়েছেন।

বর্তমানে কোভিড–১৯ রোগে আক্রান্ত ৬ জন কোভিড ডেডিকেটেড ১০০ শয্যাবিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে এবং ১১৩ জন হোম আইসোলেশনে আছেন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায নতুন করে ৪৮ জনসহ এ পর্যন্ত হোম কোযারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংখ্যা সর্বমোট ৭ হাজার ৬২৮ জন ৷

জলায় কোভিড-১৯–এর সংক্রমণ শনাক্ত হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ৪৫ জন মারা গেছেন। তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলার ২৬ জন, বেলাব উপজেলা ও রায়পুরা উপজেলার ৬ জন করে, মনোহরদী উপজেলা ও পলাশ উপজেলার ২ জন করে এবং শিবপুর উপজেলার ৩ জন রয়েছেন।

নরসিংদীর সিভিল সার্জন মো. নূরল ইসলাম জানান, আক্রান্ত হওয়ার পর এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন দুই হাজার ৩৮২ জন। তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলার ১ হাজার ৩৭৪ জন, শিবপুর উপজেলার ২৪৯ জন, পলাশ উপজেলার ২৬৮ জন, মনোহরদী উপজেলার ১৭৮ জন, বেলাব উপজেলার ১৪৪ জন ও রায়পুরা উপজেলার ১৬৯ জন রয়েছেন। এ পর্যন্ত সুস্থতার হার দাঁড়িয়েছে প্রায় ৯৫ শতাংশে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »