জ্বিন ছাড়ানোর কথা বলে ধর্ষণ, ধর্ষক আটক

জ্বিন ছাড়ানোর কথা বলে ধর্ষণ, ধর্ষক আটক


ফটো-সংগৃহীত

চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি: কুমিল্লার চান্দিনায় এক দিনের ব্যবধানে দুটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে মাদ্রাসা শিক্ষকের কাছ থেকে ঝাড়-ফুঁক নিতে গিয়ে কলেজছাত্রী এবং একই বাড়ির যুবকের কাছে এক বাক প্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

এ দুটি ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে চান্দিনা থানায় কলেজছাত্রী নিজে ও বাক প্রতিবন্ধী তরুণীর পিতা বাদী হয়ে আলাদা দুটি মামলা দায়ের করেছেন।

কলেজছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মো. শাহপরান (২৭) নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। আটক মো. শাহপরান চান্দিনা উপজেলার এতবারপুর গ্রামের বাসিন্দা।

ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী জানান, দীর্ঘদিন পেটের পীড়ায় ভোগার কারণে গত ১৪ ফেব্রুয়ারি হারং উত্তরপাড়া আল কারিম মাদ্রাসার শিক্ষকের কাছে ঝাড়-ফুঁক করার জন্য যান। ওই শিক্ষক প্রথম দিন পানিতে ফুঁ দিয়ে আরও কয়েকদিন আসার জন্য বলেন। তার কথামত বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে মাদ্রাসায় আসার পর মাদ্রাসা শিক্ষক জানান, তাকে জ্বিনে ধরেছে।

কলেজছাত্রী বলেন, ‘আমার ওপর জ্বিনের চালান দেওয়ার কথা বলে তার অফিস কক্ষে নিয়ে দরজা আটকে ধর্ষণ করেন। এ সময় আমি চিৎকার দিলেও আশেপাশে কোনো বাড়ি-ঘর না থাকায় কেউ এগিয়ে আসেনি। পরবর্তীতে আমি আমার পরিবারকে বিষয়টি জানিয়ে বৃহস্পতিবার থানায় মামলা দায়ের করি।

অপরদিকে, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চান্দিনা উপজেলার মহিচাইল ইউনিয়ের গাবগাছিয়া গ্রামে ১৮ বছর বয়সী এক বাক প্রতিবন্ধী প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দিতে ঘর থেকে বের হওয়ার পর পার্শ্ববর্তী বাড়ির লিমন মিয়াজী (২০) নামের এক যুবক তাকে ধর্ষণ করেন।

চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাসমউদ্দিন মোহাম্মদ ইলিয়াছ জানান, পৃথক দুটি ধর্ষণের ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে সত্যতা পাওয়া যায়। কলেজছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মাদ্রাসার হুজুরকে আটক করা হয়েছে। আর প্রতিবন্ধী ধর্ষণের ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিকে আটক করার চেষ্টা চলছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »