জনসন অ্যান্ড জনসন টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি

জনসন অ্যান্ড জনসন টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমতি চাইল


ফটো-সংগৃহীত

আমেরিকা প্রতিনিধিঃ মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট জনসন অ্যান্ড জনসন তাদের উদ্ভাদিত করোনাভাইরাসের টিকার জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছে।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের (এফডিএ) কাছে প্রতিষ্ঠানটি টিকাটির এক ডোজ ব্যবহারের অনুমোদন চেয়েছে। প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা পল স্টোফেলস এক বিবৃতিতে বলেছেন, জরুরি ব্যবহারের জন্য আমাদের উদ্ভাবিত কোভিড-১৯ টিকার অনুমোদনের পেলে সরবরাহ শুরু করতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। আমাদের টিকা যত তাড়াতাড়ি জনসাধারণের কাছে সহজলভ্য করা যায়, তার জন্য দ্রুততার সাথে কাজ করে যাচ্ছি।

এফডিএ জানিয়েছে, বাইরের বিশেষজ্ঞরা এই টিকাটির পর্যালোচনা নিয়ে এখন ২৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত উন্মুক্ত আলোচনা করবেন।

জনসন অ্যান্ড জানিয়েছে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে তাদের টিকা ৬৬ শতাংশ কার্যকর। এক ডোজ প্রয়োগের পর এই ফলাফল পাওয়া গেছে। একটি আন্তর্জাতিক ট্রায়ালে স্বেচ্ছাসেবকদের টিকাটির এক ডোজ দেয়ার পর কি প্রতিক্রিয়া বা ফলাফল আসে সে বিষয়ে নজর রাখা হয়েছিলো। ১৪ দিন পর্যবেক্ষণ করার পর দেখা গেছে এক ডোজে ৬৬ শতাংশ করোনা প্রতিরোধে সক্ষম জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা।

দক্ষিণ আফ্রিকায় জনসেন তাদের টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছে। দেশটিতে করোনার নতুন স্ট্রেইনের সংক্রমণ বাড়ছে। সেখানে জনসেনের টিকার কার্যকারিতা পাওয়া যায় ৫৭ শতাংশ।

এছাড়া টিকা দুই ডোজ প্রয়োগ করা হলে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা আরও শক্তিশালী হয় কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে সংশ্লিষ্টরা। সংস্থাটি দাবি করেছে, প্রাথমিক ট্রায়ালে দেখা গেছে দুই ডোজে করোনা প্রতিরোধে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা ৮৫ শতাংশ কার্যকর।

সংস্থাটি চলতি বছর বিশ্বব্যাপী এক বিলিয়ন টিকার ডোজ সরবরাহ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »