চরের মানুষের ভরসার প্রতীক হয়ে দাড়িয়ে আছে

চরের মানুষের ভরসার প্রতীক হয়ে দাড়িয়ে আছে নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোটি


ফটো-সংগৃহীত

ফুলবাড়ী প্রতিনিধি: ফুলবাড়ী উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম ফুলমতি-কান্দাপাড়া সড়কের বারোমাসি নদীর ওপর সেতু না থাকায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে দুই গ্রামের মানুষকে।

সেতু না থাকায় এলাকাবাসী নদীর পশ্চিম পাড়ে যাতায়াতের জন্য ওই নদীর ওপর পৃথক স্থানে কিছুটা দূরত্বে  বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেছেন। নিজেদের অর্থায়নে নির্মিত বাঁশের সাঁকোটি ভাঙা ও নড়বড়ে। বারোমাসি  নদীটি পশ্চিম ফুলমতি পূর্ব পাশ দিয়ে উত্তর-দক্ষিণে প্রবাহিত সরু নদী।

বর্ষাকালে কানায় কানায় ভরে গেলেও শুস্ক মৌসুমে মৃত খালের মতো দেখায়। নদীর দুই পাড়ে খারুয়ার চর, বাঘের চর, ঝাউকুটি আরো অনেকচর অবস্থিত। প্রতিদিন কোনো না কোনো কাজে চরের কয়েকশ মানুষকে আনন্দ বাজার, বালারহাট বাজারসহ উপজেলা ও জেলা সদরে যাতায়াত করতে হয়।

তাদের প্রতিদিনের যাতায়াতের একমাত্র পথ ওই বারোমাসি নদীর ওপর বাঁশের সাঁকো। গ্রামবাসীরা তাদের নিজেদের অর্থায়নে পশ্চিম ফুলমতি ও কান্দাপাড়ার মধ্যে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেছেন, যা প্রতিবছর পুনর্নির্মাণ ও সংস্কারের পরও সবসময় থাকে ঝুঁকিপূর্ণ।

সাঁকোর ওপর দিয়ে চলাচলের সময় অনেকবার দুর্ঘটনাও ঘটেছে। নদীর ওপর সেতু না থাকায় গ্রাম দুটির মানুষকে তাদের উৎপাদিত পণ্য পরিবহনসহ দৈনন্দিন যাতায়াতে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ।

বন্যার সময় গ্রামবাসীদের চলাচলে দুর্ভোগ আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়। বাড়িঘরে পানি উঠে পানিবন্দি হয়ে পড়ে গ্রামবাসী। বন্যার পানির কারণে সেতু না থাকায় অনেক কৃষকের বাড়িঘরেই নষ্ট হয় তাদের উৎপাদিত ফসল। উপরের ছবিতে দাড়িয়ে থাকা দুটি ছোট ছেলে সাগর ও সোহেল পশ্চিম ফুলমতি কান্দাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র। তারা দুই জনেই নানা দুর্ভোগের কথা তুলে ধরেন।

বন্যায় তাদের স্কুল যাওয়া আসা থেকে গ্রামবাসীর নানা দুর্ভোগের কথা। নদীর ওপর সেতু নির্মাণ এই অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি। দীর্ঘদিন থেকে এলাকাবাসী ওই নদীর ওপর সেতু নির্মাণের জন্য বিভিন্নভাবে আবেদন-নিবেদন করে আসছেন। দুর্ভোগ লাঘবে নদীটির ওই স্থানে সেতু নির্মাণ খুবই জরুরি। সেতু নির্মাণ হলে ওই অঞ্চলের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন হবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »