শিরোনামঃ
সোনারগাঁ আনন্দবাজারের ঝুঁকিপূর্ণ বেইলি ব্রিজ স্থায়ী সেতু নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন এমপি খোকা  নরসিংদীতে শিবপুরে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগ ৫ সন্তানের বাবাকে পেতে শরীরে পেট্রোল ঢেলে আগুন প্রেমিকার! সাংবাদিক মাসুদের বিরুদ্ধে সেই দুর্ণীতিবাজ প্রধান শিক্ষকের জিডি নরসিংদীতে আখের চাহিদা ও দাম বেশি হওযায আখ চাষিদের মুখে সাফল্যের হাসি ফুটেছে আধুনিকতার ছোঁয়ায় হারিয়ে যাচ্ছে লাঙ্গল দিয়ে হাল চাষ ইলিশ ধরা বন্ধ থাকবে ৪ অক্টোবর থেকে ২২ দিন শিশু সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা নরসিংদীতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করে কোটি টাকার বাণিজ্য ধানের ব্যাকটেরিয়াজনিত পাতা পোড়া রোগ

খুলছে না ২৫টি বিদ্যালয় মানিকগঞ্জে


ফটো-সংগৃহীত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মহামারি করোনার প্রভাবে প্রায় দেড় বছর ৬৫২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ছিলো, সরকারি নির্দেশনা অনুয়ায়ী আজ থেকে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত হলেও বন্যার পানির কারণে জেলার যমুনা ও পদ্মার দুর্গম চরাঞ্চলের ৫০ কিলোমিটারের মধ্যে অন্তত ২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

আজ রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে ২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধের তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাপস কুমার অধিকারী।

তিনি জানান, বন্যার পানি নেমে গেলে নিয়মিত ওই বিদ্যালয়গুলোতে পাঠদান কাযর্ক্রম চালু হবে। এক দেড় সপ্তাহের মধ্যে বন্যাকবলিত এলাকার বিদ্যালয়গুলোর মাঠ থেকে পানি নেমে যেতে পারে এমনটাই আশা ওই সব বিদ্যালয়ের প্রধানদের।

জানা যায়, চলতি বছরে বর্ষা মৌসুমে কয়েক দফা পদ্মা ও যমুনার ভাঙনে বেশ কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া চলতি বন্যায় শিবালয়, দৌলতপুর ও হরিরামপুর উপজেলার চরাঞ্চলের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে পানি প্রবেশ করে। গত সপ্তাহ থেকে পানি কমতে শুরু করেছে। তবে চরাঞ্চলের প্রায় ২৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বন্যার পানি নামলেও মাঠ এলাকায় কাদা রয়েছে। ফলে এসব বিদ্যালয় খুলে দিলেও শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে বেগ পেতে হবে।

দৌলতপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, এ উপজেলায় শতাধিক প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। বাঁচামারা, বাঘুটিয়া ও চরকাটারি এলাকায় বিদ্যালয়গুলোতে পানি নামলেও মাঠে কাদা রয়েছে। এ রকম পরিস্থিতি এ চরাঞ্চলের ১৯টি বিদ্যালয়ে থাকায় ক্লাস শুরু হতে কিছুদিন সময় লাগতে পারে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাপস কুমার অধিকারী জানান, এই জেলার তিনটি উপজেলার অধিকাংশই চরাঞ্চল থাকায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে পানি উঠেছিলো, অনেক বিদ্যালয়ে এখনো পানি আছে আর কিছু বিদ্যালয় থেকে পানি নামলেও মাঠে রয়েছে কাদা। জেলায় মোট ৬৫২টি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে তার মধ্যে থেকে ২৫টি  বিদ্যালয় খোলা সম্ভব হচ্ছে না।

এছাড়া হরিরামপুর উপজেলার সুতালড়ি ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পদ্মার গর্ভে বিলীন হয়েছে বলেও জানান তিনি।

লাইক ও শেয়ার করে পাশে থাকুন..........
All rights reserved © 2021 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY Subrata Sutradhar
Translate »